এইচ. এস. সি . পরীক্ষার- মেহেরপুর জেলার ফলাফল : সন্ধানী স্কুল কলেজ জেলার সেরা

meherpurerkanthomeherpurerkantho
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  09:54 PM, 08 February 2023

সারা দেশের ন্যায় মেহেরপুরেও এইচ,এস,সি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে।

ফলাফলে-গাংনী সন্ধানী স্কুল অ্যান্ড কলেজ শতভাগ পাস করার পাশাপাশি মেহেরপুর জেলায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে।

মেহেরপুর জেলার পাশের শতকরা হার ৭৫.৭৪% । মেহেরপুর সদর,গাংনী ও মুজিবনগর উপজেলায় মােট জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৯৬ জন।

২০২২ সালে অনুষ্ঠিত এইচ,এস,সি পরীক্ষায় মেহেরপুর জেলা থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিলেন ৩ হাজার, ৪২৬ জন। মেহেরপুর জেলায় ২৯৬ জন জিপিএ-৫ সহ পাস করেছে ২ হাজার ৫৯৫ জন।

মেহেরপুর জেলায় ১৯ টি কলেজের মধ্যে গাংনী সন্ধানী স্কুল এন্ড কলেজ তাদের শতভাগ পাশের রেকর্ড অক্ষুন্ন রেখেছে।

২০২২ সালে অনুষ্ঠিত এইচ,এস,সি পরীক্ষায় সন্ধানী স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট ৯১ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৪৮ জন জিপিএ-৫ সহ সকলেই পাশ করে জেলায় তাদের প্রথম স্থান ধরে রেখেছেন।

মেহেরপুর জেলায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে করমদী কলেজ। করমদী কলেজ থেকে ১৪৭ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ১৬ জন জিপিএ-৫ সহ ১৪০ জন পাস করেছেন। করমদী কলেজের শতকরা পাশের হার ৯৫.২৩%।

তৃতীয় স্থানে রয়েছে তেরাইল- জোরপুকুরিয়া কলেজ। এখান থেকে এবার ৬৭ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ১জন জিপিএ-৫ সহ ৬২ জন পাস করেছেন। যার পাশের শতকরা হার ৯২.৫৩%।

এরপরে রয়েছে বামন্দী- নিশিপুর স্কুল এন্ড কলেজ। এখান থেকে ১০৯ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ১২ জন জিপিএ-৫ সহ ১০১ জন পাস করেছেন । যার পাশের শতকরা ৯২.৬৬%।

এরপরের অবস্থান রয়েছে গাংনী সরকারী ডিগ্রী কলেজ। এখান থেকে ৩৪২ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৩০ জন জিপিএ-৫ সহ ২৯১ জন পাস করেছেন। যার পাশের শতকরা হার ৮৫.০৮%। এরপরে রয়েছে মেহেরপুর সরকারি কলেজ। এখান থেকে মোট পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৪৩১ জন। ২৮ জন জিপিএ-৫ সহ পাস করেছেন ৩৫৩ জন। যার পাশের শতকরা হার ৮১.৯০%।

এছাড়াও মুজিবনগর আদর্শ মহিলা কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৫৬ জন। পাস করেছেন ৪৫ জন।এখানে পাশের শতকরা হার ৮০. ৩৫ %। মেহেরপুর সরকারি মহিলা কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৬৫৩ জন। এখান থেকে সর্বাধিক ৯২ জন জিপিএ-৫ সহ পাস করেছেন ৫১৩ জন। মহিলা কলেজে পাশের শতকরা ৭৮.৫৬ ভাগ।

গাংনী স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৭৬ জন।১জন জিপিএস-৫ পাস করেছেন ৬০ জন। এখানে পাশের শতকরা হার ৭৮.৯৪ %।জাদুখালি স্কুল এন্ড কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ১২১ জন।৮ জন জিপিএ-৫ সহ পাশ করেছেন ৮৯ জন। যার পাশের শতকরা ৭৩.৫৫%। কাজীপুর কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ১৬৪ জন। ১১ জন জিপিএ-৫ সহ পাস করেছেন১১৪ জন। যার পাশের শতকরা হার ৬৯.৫১ ভাগ।

গাংনী মহিলা ডিগ্রী কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ২৫৩ জন। ২০ জন জিপিএ-৫ সহ পাস করেছেন ২২৬ জন। যার পাশের শতকরা হার ৬৯.৩২ %। মহাজনপুর কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৭৫ জন। ২ জন জিপিএ-৫ পাস করেছেন ৪৬ জন। যার পাশের শতকরা ৬১.৩৩ %। মেহেরপুর ছহিউদ্দিন ডিগ্রী কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৩৭৭ জন। ২২ জন জিপিএ-৫ সহ পাস করেছেন ২২৫ জন। এখানে পাশের শতকরা ৫৯. ৬৮ % ।

মুজিবনগর সরকারি ডিগ্রী কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৩১২ জন। ৪ জন জিপিএ-৫ সহ পাশ করেছেন ১৭৮ জন। যার পাশের শতকরা হার ৫৭.০৫% ভাগ। এ আর বি কলেজ (আমঝুপি) থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ১০৫ জন। ১জন জিপিএ-৫ সহ পাশ করেছেন ৪৫ জন। যার পাশের শতকরা হার ৪২.৮৫%। বিএন (ভাটপাড়া) কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ২৯ জন। পাস করেছেন ১২ জন। যার পাশের শতকরা হার ৪১.৩৭ %।

মড়কা জাগরণ কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ৯ জন। পাস করেছেন ২ জন।এখানে পাশের শতকরা ২২.২২ %। কুতুবপুর স্কুল এন্ড কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়েছিলেন ১৯ জন। পাস করেছেন মাত্র ২ জন। যার পাশের শতকরা হার ১০.৫২%।

আপনার মতামত লিখুন :